মানুষের শেকড় থেকেও শেকড়হীনতা

এই যন্ত্রণাটার আমি কোনও প্রকাশমাধ্যম পাইনা। কোনও ভাষা পাইনা! সীমাহীন রক্তারক্তি করলেন আপনি একটা দেশের জন্যে! তারপর সেই দেশটা হয়ে গেলে চৌদ্দ পুরুষের ভিটা ছেড়ে চলে এলেন সেই দেশে। বুক উঁচিয়ে চললেন , নতুন দেশ, স্বাধীন দেশ। কয়েক যূগ গেলো সুখস্বপ্নে। তারপর আবিষ্কার করলেন- সেই দেশটা আপনার নয়! এবং পৃথিবীর কোথাও আপনার কোনও দেশ নেই! জাতীয়তা নেই, পরিচিতি নেই। রক্তাক্ত সংগ্রামের শেষে আপনি যে দেশ হাসিল করেছিলেন- সেই দেশ আপনাকে জানাবার প্রয়োজন টুকুও বোধ করেনি- আপনাকে সে অবাঞ্ছিত করে দিয়েছে, ভিটেমাটি-পরিচিতি-অস্তিত্বহীন করে দিয়েছে!

আরেক রকমের যন্ত্রণা আছে। আপনি কোনও যুদ্ধ করেন নি। কোথাও যেতে চাননি। যাননি। চৌদ্দ পুরুষের ভিটায় আছেন। হঠাত একদিন আবিষ্কার করলেন- আপনার পরিচয়ের জন্যে, বসবাসের জন্যে একটি দেশের প্রয়োজন এবং সেই দেশটি আপনার নেই! সেই রাষ্ট্রটি আপনার নেই! পৃথিবীর কোথাও আপনার কোনও রাষ্ট্র নেই। পৃথিবীর কোথাও আপনার কোনও দেশ নেই!

আরও এক রকমের যন্ত্রণা আছে! আপনি পৈতৃক ভিটেমাটি ছেড়ে কোথাও যাননি। আপনার ভাষাটি পৃথিবীতে অচ্ছুত হয়ে গেছে। আপনার ভাষাটিকে পৃথিবী স্বীকার করেনা। অথচ আপনি জানেন আপনার ভাষাটি কত মুল্যবান, কত জরুরি। আপনার ভাষাটি ভাষা কি না- সেটি নির্ধারণ করবে রাজনীতি! একটি গরু নির্কধারণ করবে ট্রান্স সিলভেনিয়ান রেলওয়ে ট্র্যাকের ম্যাপ! আপনি জানেনও না , আপনার ভাষাটি বাতিল হয়ে গেছে। হাত পা নেই ভাষার, অথচ অন্য একটি ভাষা এসে আপনার ভাষাকে দখল করে নিয়ে চলে গেছে! এই যে আপনাকে বল্তে হচ্ছে আপনার ভাষাটি দখল হয়ে গেছে- সেটি আপনার বলতে হচ্ছে দখলবাজ ভাষাটিতেই!

এইগুলি অসহ্য যন্ত্রণা, আপনাদের বোঝার কোনও সম্ভাবনাই নেই- মাননীয় বন্ধুগণ। জাতিরাষ্ট্রের জন্মের অবশ্যম্ভাবী ফল এই মানুষের উচ্ছেদ। মানুষের শেকড় থেকেও শেকড়হীনতা। ভাষা থেকেও ভাষাহীনতা। ভিটা থেকেও ভিটাহীনতা। জন্ম, বাপ, মা- সকল কিছু থাকা সত্ত্বেও পরিচয়হীনতা। এই যন্ত্রণা প্রকাশের ভাষা আমি খুজে পাইনা।

Sadique Ittifaque

Facebook Comments
Please follow and like us:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *